সম্পাদকীয়
   প্রচ্ছদ-কাহিনী
   আইন-আদালত
   তথ্যানুসন্ধান
   ফলোআপ
   নারী
   আন্তর্জাতিক
   মতবিনিময়

যোগাযোগ
সম্পাদক, বুলেটিন
আইন ও সালিশ কেন্দ্র (আসক)

৭/১৭, ব্লক-বি, লালমাটিয়া
ঢাকা-১০০০

ইমেইল-
ask@citechco.net,
            publication@askbd.org

সম্পাদকীয়

এবারের প্রচ্ছদ-কাহিনী ভারতের পশ্চিমবঙ্গের সমাজকর্মী কৃষ্ণা ব্যানার্জীর সাক্ষাৎকারভিত্তিক রচনা শরণার্থী শিবিরের অভিজ্ঞতা- ১৯৭১। তাতে একাত্তরের নির্যাতিত নারীর ওপর বিশেষভাবে আলোকপাত করা হয়েছে। ১৯৯৭ সালে গ্রহণ করা সাক্ষাৎকারটি বুলেটিনে ছাপানোর একটি বিশেষ কারণ হলো- আমরা পাঠকদের কাছ থেকে এ ধরনের অভিজ্ঞতার কথা আরো শুনতে চাই, হারাতে বসা কাহিনীগুলো লিপিবদ্ধ করতে চাই। তা থেকে বাছাই করা অভিজ্ঞতার বয়ান বুলেটিনে ছাপানোর পরিকল্পনাও আমাদের রয়েছে, যাতে করে মুক্তিযুদ্ধ-পরবর্তী প্রজন্মের পাঠক সেসব দুঃসহ দিনগুলোর স্মৃতির অংশীদার হতে পারেন। সবার সর্বাঙ্গীণ সহযোগিতা কামনা করি।
বরাবরের মতো এবারও আইন-আদালত পর্বে রয়েছে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ মামলার পর্যালোচনা। এ রচনাগুলোতে আইনি তথ্য পরিবেশনের পাশাপাশি মামলার বিষয় নিয়ে বিস-ারিত আলোচনায় সচেষ্ট থাকেন লেখকগণ, যাতে করে আইন-আদালতের বিষয় হলেও সাধারণ পাঠকও তাতে অংশগ্রহণের সুযোগ পান। অতি সমপ্রতি যৌন হয়রানি বন্ধে আদালতের কাছ থেকে দুটি মামলায় গুরুত্বপূর্ণ দিকনির্দেশনা পাওয়া গেছে। এটি উল্লেখযোগ্য বিজয় নিঃসন্দেহে। আমরা প্রত্যাশা করি, এসব নিদের্শনার আলোকে সংসদে অতিসত্বর যৌন হয়রানি বন্ধের জন্য আইন প্রণীত হবে। এ প্রসঙ্গে স্মরণ করছি সিমি বানু, মহিমা খাতুন, শাহীনূর, রুমি, বিভা রানী, আলপিনা, ফাহিমা, চামেলী ও অন্যদের, যারা বিগত বছরগুলোতে যৌন হয়রানির শিকার হয়ে আত্মহত্যা করেছিলেন।
বুলেটিনের তথ্যানুসন্ধান পর্বে দুটি প্রতিবেদন ছাপা হয়েছে। প্রথমটি সদ্য জামিন পাওয়া অভিযুক্তকে জেল থেকে নিয়ে হত্যা করার ঘটনা। রকিবুজ্জামান নামের এ ব্যক্তিটিকে তুলে নিয়েছিল দুটি মাইক্রোবাস ও র‌্যাব-১০ লেখা একটি পিকআপ ভ্যান জেলগেটে এসে। পরদিন তার লাশ পাওয়া যায়। এ ধরনের ঘটনা শুধু উদ্বেগজনকই নয়, রাষ্ট্রের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার প্রতি নিঃসন্দেহে হুমকিস্বরূপ। এ পর্বের আরেকটি প্রতিবেদনের বিষয় সব হারিয়ে কিংবা লাশ হয়ে ফেরা অভিবাসী শ্রমিক। এ বিষয়টি ব্যাপকভাবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের মনোযোগ দাবি করে। গোটা অভিবাসন প্রক্রিয়াটি যে ঢেলে সাজানো বিশেষভাবে জরুরি হয়ে পড়েছে- আশা করি এ ব্যাপারে কারো দ্বিমত নেই।
ফলোআপ হিসেবে এবারের বুলেটিনে রয়েছে, পিলখানা হত্যাকাণ্ড- তদন- ও বিচার পদ্ধতি নিয়ে বিতর্ক। মার্চ মাস থেকে বিডিআর জওয়ানদের ‘আত্মহত্যা’ ও ‘হার্ট অ্যাটাক’-এর লাগাতার খবর আসছে। এ পর্যন- মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৪-এ। বিষয়টিতে শঙ্কিত না হয়ে পারা যায় না। ২৫-২৬ ফেব্রুয়ারির হত্যাকাণ্ডের ন্যায়বিচার আমরা অবশ্যই চাই। সেই সঙ্গে কোনো নিরপরাধ ব্যক্তি যেন সাজা না পান তার প্রত্যাশা করি। তাছাড়া নিহত বিডিআরদের মৃত্যুর সঠিক ও নিরপেক্ষ তদন- হওয়া প্রয়োজন বলে মনে করি।